Image

Welcome To

National Institute of Engineering & Technology (NIET)

ডিজাইন শব্দটি সমসাময়িক উদ্ভাবনী সৃষ্টি নয় , এটি সৃষ্টি শুরুতে আমরা ডিজাইন এর সাথে পরিচিত কালে কালে যুগে যুগে সমস্ত কিছু পরিবর্তিত হয়েছে ডিজাইন সেই সাথে পরিবর্তিত হয়েছে ,কিন্তু এর বিনাশ কখন হয়নি ,মানুষ মরে যায় কিন্তু মানুষ সৃষ্ট শিল্প বিনাশ হয় না ।এখন একটু অন্য দিকে আসা যাক ,মানুষের মৌলিক চাহিদা তিনটি অন্ন ,বস্ত্র ,বাসস্থান ।আমি ,তুমি ,সে /একজন মানুষ সারাজীবনের উপার্জন দিয়ে যে স্বপ্ন দেখে তা একটি বাড়ি ,আর এই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে একজন Architect  যা আপনার সারাজীবনের সপ্ন কে বাস্তবায়িত করতে সাহায্য করে। একটি বাড়ি তৈরিতে প্রথমে কাজ করে একজন Architect  / স্থাপতি । তাই স্থাপত্য বিদ্যা শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম ।দেশের বিভিন্ন অবকাঠামো ,নগরায়ান,অরবান উন্নতি সাধনে Architecture Engineerinig এর জ্ঞান অপরিসীম।

Image Not Found

আর্কিটেক ইঞ্জিনিয়াদের কাজঃ অভিনব পরিবর্তনশীল গ্রহনযোগ্য নতুন নতুন বাড়ী  ঘরের  ডিজাইন করা। কন্সক্ট্রাকশন কাজের তাদারকি করা। অফিস,বাড়ীঘর ,শপিংমলের ফার্নিচার ডিজাইন করা।প্রয়োজনমতে বাড়ীর আশেপাশের গাছপাড়ার ও ল্যান্ডস্কেপ ডিজাইন করা। অর্থাৎ  পরিকল্পিত  নগরায়ান,আধুনিক শহর ও রাষ্ট্র গঠনে আর্কিটেক ইঞ্জিনিয়াদের ভূমিকা অপরিহার্য্য।

  • সব ধরনের বাড়ির  Interior and Exterior   ডিজাইন করা ।
  • ফার্নিচার ডিজাইন করা ।
  • আরবান ডিজাইন করা
  • ল্যান্ডস্কেপ ডিজাইন করা
  • লাইটিং সজ্জার ব্যবস্থা করা ।
  • আফিস,হোটেল ,হাসপাতাল , রেস্টুরেন্ট ,শপিং মল ,রিসোর্ট , ইত্যাদি ।

কেন এআইডিটি টেকনোলজিতে পড়বেনঃ আধুনিক যুগের চালেঞ্চমুখি পেশার অন্যতম পেশা আর্কি্টকচার । নিজের সৃজনশীলতা বিকাশ করার অন্যতম মাধ্যম হল আর্কি্টেকচার টেকনোলজিতে পড়াশুনা করা। একজন ছাত্র নিঃ সন্দেহেই নিজের সুপ্ত প্রতিভাকে বিকাশ করতে পারবে আর্কি্টেকচার ডিপার্টমেন্টের মাধ্যমে।

কর্মক্ষের পরিধিঃ আর্কি্টকচার টেকনোলজি কর্মক্ষের পরিধি বিশার । আর্কিটেক ইঞ্জিনিয়াদের সরকারী চাকুরি আশাই বসে থাকতে হয়না । আর্কি্টকচার জ্ঞান ( ডিজাইন,এলিভেশন,সেকসন) জানা থাকলে সে ঘরে বসে টাকা উপার্জন করতে পারবে এন্ড নিজে নিজের ব্যবসা (আর্কি্টেকচার ফার্ম) শুরু করে স্ব্নির্ভর হতে পারবে।অসংখ্য প্রাইভেট ফার্মে চাকুরি সুযোগে অনেক বেশি ।

সরকারী চাকুরির সুযোগঃ কোর্স কমপ্লিট করার পর  ডিজাইনার ও  কন্সট্রাকশন ফার্ম,ডেভলপার কোম্পানিতে  বিভিন্ন সেকশনে একজন সাব- অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারিং/আর্কিটেক হিসাবে কাজ করতে পারবেন ।

  • রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)
  •  গণপূর্ত অধিদপ্তর।
  • বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (বাপাউবো) 
  •  স্থানীয় সরকার বিভাগ।
  • স্থাপত্য বিভাগ ।
  • বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)
  • বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)
  • বাংলাদেশ রেলওয়ে।
  • ওয়াসা।
  • বাংলাদেশ রেলওয়ে।
  • বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরন কর্তৃপক্ষ (বেপজা)
  • বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌ পরিবহন কর্পোরেশন।
  • মৎস্য উন্নয়ন অধিদপ্তর।
  • বিভিন্ন ওয়ার্কশপ ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে ল্যাব ইন্সট্রাক্টর পদে চাকুরী ও সরকরী পলিটেকনিক এ জুনিয়র  ইন্সট্রাক্টর চাকুরী যুগদানের রয়েছে ।

কেন ন্যাশনাল ইন্সিটিউট ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির এআইডিটি বিষয়ে পড়বেন ?

  • এনআইইটি  শিক্ষার্থীদের জন্য সর্বনিম্ন শিক্ষাদান ফি দিয়ে পড়াশুনা করার সুযোগ দেয়।
  • মেয়েদের বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ।
  • অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা পাঠ দান। ক্লাস মনিটরিং ও ক্লাস টেস্টের সুব্যাবস্থা।
  • সুসজ্জিত ও আধুনিক  ল্যাব। এবং পর্যাপ্ত পরিমানের অত্যাধুনিক সফটওয়্যার ইন্সটলড (AUTO-CAD,STUDIO-MAX,SKECH UP,REVIT) কম্পিউটার দ্বারা সুগঠিত ল্যাব
  • দূর্বল ছাত্র ছাত্রীদের জন্য অতিরিক্ত ক্লাসের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে।
  • শীতাতপ নিয়ন্ত্রীত ক্লাস রুম ও ল্যাব। ও ক্লাসের পরেও এক্সট্রা ক্লাসের সুবিধা।
  • এনআইইটি এর শিক্ষার্থীরা ভালো ফলাফল করলে উক্ত প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার সুযোগ রয়েছে।
  • বিভিন্ন দেশি ও বিদেশি লেখকের অসংখ্য বই সম্বলিত লাইব্রেরী।
  • শিক্ষার্থীর পড়াশোনার অগ্রগতি সম্পর্কে অভিভাবকদের জানানো এবং অভিভাবকের সাথে শিক্ষক দের সরাসরি আলোচনার ব্যাবস্থা।
  • শিক্ষামুলক প্রজেক্ট বাস্তবায়নে উৎসাহ ও সহায়তা প্রদান।
  • এনআইইটি এর শিক্ষার্থীদের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো,তারা উচ্চশিক্ষা অর্জন করার জন্য আমাদের সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটিতে স্বল্প খরচে পড়াশুনা করতে পারবে।
  • ন্যাশনাল ইন্সিটিউট ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি এক জন ছাত্র এআইডিটি পড়াশুনা করলে বেকার বসে থাকবে না আশা করি ।

Instructor

No Image

Md.Mozammel

Instructor